বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১২ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

মা এখনো অংক বোঝেনা

হানিফ উদ্দিন সাকিব নোয়াখালীঃ / ৮৬ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞাপন

১ টা রুটি চাইলে ২ টা নিয়ে আসে। কোথাও যাওয়ার সময় ২০ টাকা চাইলে ৫০ টাকা পকেটে ঢুকিয়ে দেয়। সে আমার মা।

মা ইংরেজিও বোঝে না,

I hate u বললে মা উল্টে না বুঝে ছেলেকে ভালোবেসে বুকে টেনে নেয়। সে আমার মা।

মা মিথ্যেবাদী,

না খেয়ে বলে খেয়েছি। পেটে খিদে থাকা সত্ত্বেও নিজে না খেয়ে প্রিয় খাবারটা ছেলের জন্য যত্ন করে তুলে রাখে। সে আমার মা।

মা বোকা,

সারাজীবন কলুর বলদের মতো রান্নাঘর আর আমাদের ভালোমন্দের পিছনে সময় কাটিয়ে দেয়। সে আমার মা।

মা চোর,

বন্ধুদের সাথে পিকনিকে যাব বললে রাতেই বাবার পকেট থেকে টাকা চুরি করে আমাকে দিয়ে দেয়।

সে আমার মা।

মা নির্লজ্জ,

মাকে কতবার বলি আমার জিনিষে যেন হাত না দেয়। তবুও মা নির্লজ্জের মতো আমার এলোমেলো পড়ে থাকা জিনিসগুলো নিজের হাতে গুছিয়ে রাখে, সে আমার মা।

মা বেহায়া,

আমি কথা না বললেও জোর করে এসে বেহায়ার মতো গায়ে পড়ে কথা বলে। রাতে ঘুমের ঘোরে আমাকে দরজা দিয়ে উঁকি মেরে দেখে যায়,

সে আমার মা।

মায়ের কোন কমনসেন্স নেই,

আমার প্লেটে খাবার কম দেখলে কেমন জানি করে। খোকা এতো খাবার কম কেন? এই বলে প্লেটটা ভর্তি করে দেয়। এতো খাওয়ার পরেও মায়ের চোখে যেন কত দিনের না খাওয়া ছেলে,

সে আমার মা।

মা কেয়ারলেস,

নিজের কোমরের ব্যথা, পিঠের ব্যথায় ধুঁকে ধুঁকে মারা গেলেও কখনো ঔষধের কথা বলে না। অথচ আমাদের একটা কাশিতে তাঁর দিনটা যেন ওলটপালট হয়ে যায় ডাক্তার, হাকিম, বৈদ্য সব এক করে বসে,সে আমার মা।

মা আনস্মার্ট,

সঞ্জীবের মায়ের মতো করে মা দামী দামী শাড়ি পড়ে না। ভ্যানিটিব্যাগ ঝুলিয়ে, স্মার্টফোন হাতে নিয়ে ঘুরতেও যায়না। সারাদিন খালি রান্নাঘর আর আমাদের ভালোমন্দের চিন্তায় পুরোনো হয়েই জীবনটা কাটিয়ে দেয়,

সে আমার মা।

মা স্বার্থপর,

নিজের সন্তান ও স্বামীর জন্য মা দুনিয়ার সব কিছু ত্যাগ করতে পারে,

সে আমার মা।

পৃথিবীর সবচেয়ে খারাপ বোধহয় মা।

তাই বুঝি আমরা সন্তানেরা তাঁদের এত কষ্ট দিচ্ছি তবুও তাঁদের পরিবর্তন হয়না।

প্রতিদিন এসব আচরণগুলো বারবার তাঁরা করে। একটু বড় হয়ে গেলেই আমরা তাদের বৃদ্ধাশ্রমে বা জীবন থেকে দূরে রাখি।

তবুও তারা বোকার মতো কাছে বসে আমাদের মঙ্গলের জন্য দোয়া ও প্রার্থনা করে।

সারাজীবনটা আমাদের খালি ভালোবাসা দিয়েই যায়।

বিনিময়ে দিনে একবার হলেও সন্তানের মুখে আদর করে ‘মা’ ডাক শুনতে চান।


এ জাতীয় আরো খবর ....

বিজ্ঞাপনের জায়গা

বিজ্ঞাপনের জায়গা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর