বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

বাস্তবায়ন হোক লকডাউন : রয়েছে ‘শাট ডাউন’ এর সুপারিশ: প্রশ্ন জীবিকা?

প্রথমকাল.কম: / ১৮৩ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১, ১০:৪৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞাপন

কুষ্টিয়া সহ সারাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। সারাদেশে কোভডি-১৯ আক্রান্ত হয়ে এ র্পযন্ত মোট ১০ হাজার ৫৩ জনের মৃত্যু ও মোট ৮ লাখ ৮৩ হাজার ১৩৮ জন সনাক্ত হয়েছে। ভয়বহ

করোনাভাইরাস থেকে দেশের জনগণকে বাঁচাতে সরকার ০১ জুলাই থেকে সারাদেশে আবারো লকডাউন ঘোষনা করেছে।

লকডাউন ঘোষনার আগে জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি ১৪ দিনের সম্পূর্ণ “শাট ডাউন” দেয়ার সুপারিশ করেছেন।

চলমান বিধিনিষেধ এবং বিভিন্ন জেলায় এলাকাভিত্তিক লক ডাউন থাকার পরও কেন এমন সুপারিশ করা হয়েছে- এমন প্রশ্নের উত্তরে বিবিসি নিউজের তথ্যে জানা গেছে, ঐ কমিটির প্রধান অধ্যাপক মো: শহীদুল্লাহ বলেছেন, বিপর্যয় এড়ানোর জন্য কার্যকর একটা পদক্ষেপ চাইছেন।

যে লক ডাউনটা চলছে, তাতে অফিস আদালত খোলা, গণপরিবহণ খোলা, দোকানপাট খোলা -তার ফলে এই লক ডাউন দিলেও আমরা দেখছি যে, লক্ষ লক্ষ মানুষ রাস্তাঘাটে যাচ্ছে, অফিসে যাচ্ছে। তাতে যে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল সেটা পাওয়া যাচ্ছে না। লক ডাউন দিয়ে যেখানে করোনা সংক্রমন কমার কথা। কিন্তু সংক্রমণ কমে নাই, আরও বেড়েছে।

যদি এভাবে বাড়তে থাকে, তাহলে দেশের অবস্থা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে, চিকিৎসা ব্যবস্থা দিয়ে তা মোকাবেলা করা যাবে কি-না এমন প্রশ্ন রয়েছে অনেকের মাঝে।

এ অবস্থায় ঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি ও সেনাবাহিনী থাকতে পারে এমন সংবাদ সচেতন মহলের মাঝে কিছুটা স্বস্তি এসেছে। প্রয়োজনবোধে পরবর্তীতে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করে শাট ডাউনের বিষয়টিও বিবেচনা করা হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

কিন্তু এখন প্রশ্ন হচ্ছে মানুষের জীবিকা? বিধিনিষেধ, লক ডাউন ও শাট ডাউন যাই বলা হোক, তা বাস্তবায়নে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে দরিদ্র বা নিম্ন আয়ের মানুষসহ একটা বড় জনগোষ্ঠীর খাবারের যোগান নিশ্চিত করা। অর্থনৈতিক বা জীবিকার প্রশ্নে মানুষ কিন্তু বিধিনিষেধ মানতে চায় না। মানুষকে ঘরে রাখতে হলে প্রথম শর্তই হচ্ছে, দিনের কাজের ওপর নির্ভরশীল বা একেবারে নিম্ন আয়ের মানুষ তাদের খাবারের বিষয়ে সহায়তা করা।

বর্তমান অবস্থায় এ ধরনের সহায়তার বিষয়টি মাথায় রেখে সরকার কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন করে মরামারি করোনা সংক্রমন থেকে দেশের জনগণকে রক্ষা করবেন বলে আমরা আশা করছি।


এ জাতীয় আরো খবর ....

বিজ্ঞাপনের জায়গা

বিজ্ঞাপনের জায়গা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর