বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জেলা প্রতিনিধি, উপজেলা প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি, বিভাগীয় প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য জীবনবৃত্তান্ত, জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি ইমেইল করুন [email protected]  এই ঠিকানায়

ত্রিশালে নির্বাচনী মাঠে চাচা-ভাতিজা, ভাই-ভাইয়ের লড়াই

সাইফুল আলম তুহিন, ত্রিশাল প্রতিনিধি / ১০৯৭ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ৫:৪৫ অপরাহ্ন
ত্রিশালে নির্বাচনী মাঠে চাচা-ভাতিজা, ভাই-ভাইয়ের লড়াই

বিজ্ঞাপন

 

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার পৌর নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি নির্বাচনী আনন্দ বিরাজ করছে নওধারের কেরানীর বাড়ি মোড়ে। পৌরসভার যেকোনো জায়গা থেকে নির্বাচনী আবহে এগিয়ে আছে এই মোড়।

কেরানীর বাড়ী মোড় জায়গাটিতে ২ ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মিলন মেলায় পরিণত হয়। যার যার পছন্দের প্রার্থীদের নিয়ে চলে মুখরোচক আলোচনা-সমালোচনা। এই মোড়টি পৌর বাজার থেকে একটু দূরে হলেও বাজারের যেকোনো জায়গা থেকে এর সাজসজ্জা অনেক বেশি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এই মোড়েই ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মিলন মেলা বসে। ৯ কেন্দ্রে মোট ৩৬ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ৬ নং ওয়ার্ডেই ৮ জন প্রার্থী। তার মধ্যে দুইজন সাবেক কাউন্সিলর ও একজন বর্তমান কাউন্সিলর রয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা সুমন মিয়া জানান, “পৌর বাজারের বাইরে সবচেয়ে বেশি লোকজন এই মোড়ে থাকে বিদায় মেয়র প্রার্থীদের প্রচারণাও এখানে সবচেয়ে বেশি।

সাবেক কাউন্সিলর মোঃ ফজলুল হক ও তার ভাতিজা আলমগীর কবীর(আলম) ৬ নং ওয়ার্ডেরই কাউন্সিলর প্রার্থী।

অন্যদিকে সাবেক কাউন্সিলর মোঃ আব্দুল বাতেন ও তার চাচাতো ভাই মোঃ আছাদুল হকও একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী।

চাচা-ভাতিজা ও ভাই-ভাইয়ের নির্বাচনী মাঠে ভোট চেয়ে বেড়ানো, নির্বাচনী আলোচনায় দিয়েছে আলাদা রসদ।”

এলাকা ঘুরে আরও জানা যায়, ‘উচ্চ শিক্ষিত, স্মার্ট আওলাদুল ফরহাদও এবার এই ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন। সে তার ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের দিচ্ছে আধুনিক ওয়ার্ড গড়ার প্রতিশ্রুতি।

বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ দুলাল মন্ডল (দুলু), আব্দুল মোতালেব ও মোঃ নূরুল ইসলাম (সরকার)ও বেশ জোড়েসোড়েই প্রচারণা চালাচ্ছেন।

সাবেক কাউন্সিলর ফজলুল হক ও আব্দুল বাতেন জনপ্রিয়তায় এগিয়ে থাকলেও বাধ সেধেছে তাদেরই পরিবারের আরেকজন করে প্রার্থী দাঁড়ানোতে।’

স্থানীয় মামুন জানান, কেরানী বাড়ি মোড় প্রার্থীদের প্রচারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি মোড়। এ মোড়ে অনেক লোকজন কে একসাথে পাওয়া যায়। তাই এই মোড়ের সাজসজ্জাও বেশি।

৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আওলাদুল ফরহাদ জানান, জনগণ সুযোগ দিলে ওয়ার্ডের স্থায়ী জলাবদ্ধতা নিরসন, সুষ্ঠু ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ প্রশস্ত রাস্তা নির্মাণ, ডাম্পিং স্টেশন তৈরি, সড়কবাতি স্থাপন, ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা, খেলার মাঠ, নৈশ প্রহরীর ব্যবস্থাসহ মাদক সন্ত্রাস দূর করে আধুনিক নাগরিক সুবিধা সংবলিত ডিজিটাল ওয়ার্ড গড়ার জন্য দিনরাত পরিশ্রম করবো।

৬ নং ওয়ার্ডের কমিশনার প্রার্থী ফজলুল হক জানান, আমাদের ওয়ার্ডে এবার প্রার্থী বেশি। জনগন আমাকে যেভাবে ভালোবেসে কাছে টানছে, তাতে আমি আশাবাদী। জনগণের সাথে আগে থেকেই আমার ভালো একটা সম্পর্ক ছিল। এখন সেটা আরও গভীর হয়েছে। আমি নির্বাচিত হলে ৬ নং ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ডে পরিণত করবো।

আরেক কমিশনার প্রার্থী মোঃ আব্দুল বাতেন জানান, ৬নং ওয়ার্ডবাসীর পাশে আগেও ছিলাম এখনও আছি। ইনশাআল্লাহ সামনেও থাকব। সবার সহযোগিতা নিয়ে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোকে এগিয়ে নিতে চাই।

তবে এলাকার সাধারণ জনগণ মনে করছে এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কে হবে তা আগে থেকে বলা মুশকিল। প্রত্যেক প্রার্থীরই কিছু পারিবারিক ভোট ব্যাংক রয়েছে।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারিতে মোট ১৪ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত ত্রিশাল পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ চারজন প্রার্থী, কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে পৌরসভায় এবার মোট ভোটার সংখ্যা ২৬৮২২ জন।


এ জাতীয় আরো খবর ....

বিজ্ঞাপনের জায়গা

বিজ্ঞাপনের জায়গা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর